ইসলামী ব্যাংকের নতুন ভাইস চেয়ারম্যান ইউসুফ আবদুল্লাহ

প্রচ্ছদ » Breaking News || Slider || অর্থনীতি » ইসলামী ব্যাংকের নতুন ভাইস চেয়ারম্যান ইউসুফ আবদুল্লাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক :অবশেষে চেয়ারম্যানের সঙ্গে বিরোধের’ জেরে পদ থেকে বিদায় নিতে হল ইসলামী ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক সৈয়দ আহসানুল আলমকে। তাঁর জায়গায় আল রাজি গ্রুপের প্রতিনিধি ইউসুফ আবদুল্লাহ আল-রাজিকে নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার ব্যাংকটির ৩৪তম বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তিনি এখন শুধু সতন্ত্র পরিচালক হিসেবে থাকবেন।

এছাড়া এখন থেকে ব্যাংকটিতে একজন মাত্র ভাইস চেয়ারম্যান থাকবেন বলে সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সভাশেষে ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান আরাস্তু খান জানান, এখন থেকে ব্যাংকটির একমাত্র ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে আল রাজি গ্রুপের প্রতিনিধি ইউসুফ আবদুল্লাহ আল-রাজি দায়িত্ব করবেন।

ঢাকা সেনানিবাসের কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবের এই সভায় আহসানুল হক উপস্থিত ছিলেন না। সাধারণ শেয়ার হোল্ডারদেরও অল্প কিছু সংখ্যক উপস্থিত থাকার সুযোগ পেয়েছেন। অডিটোরিয়ামের অর্ধেক আসনই খালি ছিল।

এর আগে গত শনিবার আহসানুল হক এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, গত ১৩ মে পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে সৈয়দ আহসানুল হকসহ অন্য পরিচালকদের পদত্যাগ করতে চাপ দেওয়ার বিষয়টি উত্থাপিত হয়। তারা এই হীন বিপজ্জনক ষড়যন্ত্রের নেপথ্য শক্তিকে বের করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বিষয়টি বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষের নজরে আনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, কোনো পরিচালককে হুমকির মুখে পদত্যাগ করতে বাধ্য করা হলে বহু সম্মানিত পরিচালক একযোগে পদত্যাগ করবেন।

আহসানুল হক অভিযোগ করেন, ইসলামী ব্যাংকে জামায়াত সমর্থকদের শক্তি সংহত হচ্ছে এবং তাতে সরকারের অনানুষ্ঠানিক উদ্যোগটি ভেস্তে যেতে পারে।

এই নিয়ে তিনি সম্প্রতি তার ফেসবুকে লিখেন, অশুভ শক্তির ইশারায় আমার শত চেষ্টার পরেও ইসলামী ব্যাংকে রাষ্ট্র বিরোধী শক্তি পুনর্বাসিত হয়েছে এবং জাতির পিতার খুনীদের সাথে সংশ্লিষ্টরা ফিরে আসছেন নেতৃত্বে। আগামী বছর এই ব্যাংকটিকে রাষ্ট্রবিরোধী কাজে ব্যবহার করার নীল নকশা সম্পাদন হচ্ছে।

একটি অনলাইন পোর্টালে তিনি আরও স্পষ্ট ও দৃঢ়ভাবে এ অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেছেন, ইসলামী ব্যাংক আবারও স্বাধীনতাবিরোধীদের হাতে চলে গেছে।

তবে চেয়ারম্যান আরাস্তু খান গত বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন করে আহসানুল হকের অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দেন। তিনি বলেন, ভাইস চেয়ারম্যান যে কথা ফেসবুকে লিখেছেন তার কোনো ভিত্তি নেই।

আরাস্তু খান সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সৈয়দ আহসানুল আলম পারভেজ চাইলে নিজে থেকে পদত্যাগ করতে পারেন। তার থাকা বা পদত্যাগ নিয়ে ব্যাংকের ভেতর থেকে তার উপর কোনো চাপ নেই।

স্বাধীন পরিচালক হিসেবে যদি উনি (ভাইস চেয়ারম্যান) নিজে পদত্যাগ করেন সেক্ষেত্রে আমাদের কিছু করার নেই। এটা আমার ব্যাপার না। তার থাকা বা পদত্যাগ নিয়ে ব্যাংকের ভেতর থেকে কোনো চাপ নেই।

আরস্তু খান বলেন, আমরা এখানে ভালো কিছু করতে এসেছি। সবাই কিন্তু অনেক সৎ। এমনকি তিনিও (ভাইস চেয়ারম্যান)। কিন্তু, আমি জানি না। তিনি কেন এগুলো করেছেন। সরকার, ব্যাংক, বোর্ড এবং এই ম্যানেজমেন্টের ভাবমূর্তি নষ্ট করার কোনো অধিকার তার নাই।

উল্লেখ, গত জানুয়ারিতে সাবেক অতিরিক্ত সচিব আরাস্তু খানকে চেয়ারম্যান, অধ্যাপক সৈয়দ আহসানুল আলমকে ভাইস চেয়ারম্যান করার পাশাপাশি ব্যাংকটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদেও পরিবর্তন আসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Live Video

সম্পাদকীয়

অনুসন্ধানী

বিনিয়োগকারীর কথা

আর্কাইভস

November ২০২০
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Oct    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০