ফেসবুককে মিরান্ডা কারের তুলোধুনা

প্রচ্ছদ » তথ্যপ্রযুক্তি » ফেসবুককে মিরান্ডা কারের তুলোধুনা

পুঁজিবাজার রিপোর্ট ডেস্ক:
ছবি ও ভিডিও শেয়ারিংয়ের জনপ্রিয় অ্যাপ স্ন্যাপচ্যাট। বিশ্বব্যাপী এর দৈনিক ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১৫৮ মিলিয়নের বেশি।

স্ন্যাপচ্যাটের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী ইভান স্পিজেল প্রকাশ্যেই দেখে আসছেন তার অ্যাপের বিভিন্ন ফিচার অবিরাম নকল করে চলেছে ফেসবুক। কিন্তু ২৬ বছর বয়সী ইভান স্পিজেল ইন্টারভিউ দেওয়ার ব্যাপারে লাজুক হিসেবে বিখ্যাত, তাই ফেসবুকের এই নকলের বিষয়ে তিনি আসলেই কি মনে করেন, সেটা হয়তো কখনোই আমরা জানতে পারবো না।

তবে এক্ষেত্রে ধন্যবাদ দেয়া যেতে পারে তার বাগদত্ত্বা অস্ট্রেলিয়ান সুপারমডেল মিরান্ডা কার-কে, কেননা তিনি এ ব্যাপারে মুখ খুলেছেন।

যুক্তরাজ্যের দ্য টাইমসের রিচার্ড গুডউইনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মিরান্ডা বলেন, স্ন্যাপচ্যাটকে ফেসবুকের এই কপি করার মানসিকতায় তিনি ‘আতংকিত’। তিনি বলেন, ‘তারা কি উদ্ভাবনী হতে পারে না?’ ‘আমার পার্টনারের সব ধারণা তাদের চুরি করতে হবে?’

তার এই মন্তব্য প্রমাণ করে যে, ইভানের খুব কাছের কারো একজনের ফেসবুকের ব্যবহার সম্পর্কে অনুভূতি কি ধরনের।

দ্য টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মিরান্ডা বলেন, ‘তিনি ফেসবুক আর ব্যবহার করবেন না।’

মিরান্ডা ফেসবুকে আর নিয়মিত না হওয়ার কথা জানালেও, স্ন্যাপচ্যাটের পাশাপাশি নিয়মিত ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারী এবং ইনস্টাগ্রামে তার ১০ মিলিয়ন ফলোয়ার রয়েছে। ইনস্টাগ্রাম ফেসবুকেরই মালিকানাধীন অ্যাপ। ইনস্টাগ্রামেও সম্প্রতি স্ন্যাপচ্যাটকে অনুকরণ করে ফিচার যোগ করা হয়েছে, যেটা হয়তো তাকে এবার মুখ খুলতে বাধ্য করেছে।

৩৩ বছর বয়সী এই মডেল বলেন, ‘তারা কি উদ্ভাবনী হতে পারে না? আমার পার্টনারের সব ধারণা তাদের চুরি করতে হবে? আমি খুবই আতংকিত এ ঘটনায়….আপনি যখন সরাসরি কাউকে কপি করেন, তখন সেটা নতুনত্ব হতে পারে না।’

তিনি তার এই মন্তব্য প্রকাশের অনুমোদন দিয়ে বলেন, ‘আমি এতে পরোয়া করি না। এটা লজ্জার ব্যাপার। তারা রাতে ঘুমায় কিভাবে?’

উল্লেখ্য, স্ন্যাপচ্যাট এবং ফেসবুক- এই দুই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের মাঝে মনকষাকষি নতুন নয়। ২০১৩ সালে প্রায় ৩০০ কোটি ডলার দিয়ে স্ন্যাপচ্যাট কিনতে চেয়েছিল ফেসবুক। কিন্তু মার্ক জাকারবার্গের কাছে নিজেদের বিক্রি করতে রাজি হয়নি ইভান স্পিজেল। বরঞ্চ আকর্ষণীয় সব ফিচারে প্রতিদ্বন্দ্বীতায় ফেলে ফেসবুককে।

জনপ্রিয় চ্যাটিং অ্যাপ ‘হোয়াটস অ্যাপ’ কে নিজের আয়ত্ত্বে নিয়েছে ফেসবুক। নজর ছিল আরেকটি জনপ্রিয় অ্যাপ ‘স্ল্যাপচ্যাট’ এর দিকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত এটি বাগে না আসায়, স্ন্যাপচ্যাটের বেশ কিছু জনপ্রিয় ফিচার অনুকরণ করে ফেসবুক, ফেসবুক মেসেঞ্জার এবং ইনস্টাগ্রামে চালু করে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

ফেসবুকেই স্ন্যাপচ্যাটের বেশ কিছু জনপ্রিয় ফিচার যোগ হওয়ায়, ব্যবহারকারী উল্লেখযোগ্য পরিমানে হ্রাস পাচ্ছে স্ন্যাপচ্যাটের। গত বছর স্ন্যাপচ্যাটের অনুকরণে ইনস্টাগ্রামে ‘স্টোরিজ’ ফিচার যুক্ত করা হয়েছে এবং খুব শিগগির ফেসবুকের মূল অ্যাপেও ‘স্টোরিজ’ ফিচারটি নিয়ে আসার লক্ষ্যে পরীক্ষামূলকভাবে তা চালু করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Live Video

সম্পাদকীয়

অনুসন্ধানী

বিনিয়োগকারীর কথা

আর্কাইভস

December ২০২০
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Nov    
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১