রডের বাজার অস্থির : টনে বেড়েছে ৫ হাজার টাকা

প্রচ্ছদ » Breaking News || Slider || অর্থনীতি » রডের বাজার অস্থির : টনে বেড়েছে ৫ হাজার টাকা

পুঁজিবাজার রিপোর্ট ডেস্ক : আগামী ১ জুলাই থেকে নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর হবে। আইন কার্যকর হলে রড বিক্রিতে ভ্যাট বাড়বে। তবে বাজেট ঘোষণার পরেই রডের বাজার অস্থির হয়ে পড়েছে। বাজারে রডের দাম গত দু’দিনে টনে দুই হাজার থেকে পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত বেড়ে গেছে। পাশাপাশি খুচরা পর্যায়ে রডের সরবরাহ হঠাৎ কমে গেছে। ঠিকমতো পাওয়া যাচ্ছে না।

বর্তমানে প্রতি টন রডে ৯০০ টাকা ভ্যাট দিতে হয়। দাম কম ধরে নির্দিষ্ট ট্যারিফ ভ্যালুর ভিত্তিতে এ ভ্যাট রয়েছে। নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর হলে রডের বাজারমূল্যের সঙ্গে ১৫ শতাংশ ভ্যাট যোগ হবে। এতে করে রডের দাম টনপ্রতি ৬ থেকে ৭ হাজার টাকা বাড়ার কথা; কিন্তু ব্যবসায়ীরা সে পর্যন্ত আর অপেক্ষা করেননি।

খুচরা বাজারে ৬০ গ্রেডের প্রতিটন রডের দাম ছিল ৪৮ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা। বাজেট ঘোষণার পর এর দাম পড়বে ৫০ হাজার থেকে ৫১ হাজার টাকা। গতকাল বাজারে বিএসআরএম, কেএসআরএম ও আরআরএমসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের রড খুচরায় প্রতিটন ৫২ হাজার থেকে ৫৫ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে।

তেজগাঁও তেজতুরী বাজারের রড ও সিমেন্টের সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান জনতা ট্রেডিংয়ের ব্যবসায়ী মো. মিন্টু মিয়া গতকাল সমকালকে বলেন, গত দু’দিন ধরে স্থানীয় সাধারণ মানের রড উৎপাদনকারী কোম্পানিগুলো দাম বাড়িয়েছে। তিনি ৪০ গ্রেডের রড সকালে ৪৪ হাজার টাকায় বিক্রি করেন। কিন্তু দুপুরে রড আনার জন্য অর্ডার দিলে মিল থেকে ৪৬ হাজার টাকার কমে সরবরাহ করতে রাজি হয়নি। এ কারণে তিনি তিন হাজার টাকা দর বাড়িয়েছেন।

আর আর বিল্ডার্সের বিক্রয়কর্মী মো. মামুন বলেন, গত দু’দিন ধরে মিল থেকে রড কিনতে পারছেন না তিনি। সংকটের কারণে দর বেড়েছে। খুচরা পর্যায়ে প্রতিটন বিএসআরএম ৬০ গ্রেডের রড ৫২ হাজার থেকে ৫৪ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অন্যান্য ব্র্যান্ডের রডও হাজার টাকা ব্যবধানে বিক্রি হচ্ছে। এখন বাজারে সুনির্দিষ্ট দর নেই। যে যার মতো দরে বিক্রি করছে।

বাংলাদেশ অটো রি-রোলিং অ্যান্ড স্টিল মিলস অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শেখ মাসাদুল আলম বলেন, ট্যারিফ ভ্যালুর ওপর আগে প্রতিটন রডে ৯০০ টাকা ভ্যাট দিতে হয়েছে। এখন ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট দিতে হলে সাড়ে সাত হাজার টাকা ভ্যাট দিতে হবে। এ ছাড়া প্রতিটন রড উৎপাদনে পাঁচ হাজার টাকা বিদ্যুতে ও এক হাজার টাকা গ্যাসে ব্যয় হয়। গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েছে সরকার। এর সঙ্গে বাড়তি ভ্যাট। সব মিলে রডের দাম টনে ১০ হাজার টাকা বাড়বে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

বাজেট কার্যকরের আগে কেন দাম বাড়ল_ জানতে চাইলে শেখ মাসাদুল আলম বলেন, গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হলেও তখন সমন্বয় করা হয়নি। এখন বাজেট ঘোষণার পরে দাম বৃদ্ধির খবরে রডের চাহিদা বেড়ে গেছে। এ কারণে বাজারে আগের চেয়ে বেচাকেনা বেড়েছে। ফলে এখন মিলগুলো গ্যাস ও বিদ্যুতের বাড়তি খরচের সঙ্গে রডের দাম সমন্বয় করছে। তাছাড়া জাহাজের স্ক্র্যাপের দাম টনে তিন হাজার টাকা বেড়েছে। এসব কারণে বাজারে এখন রডের দাম বাড়ছে। তবে আগামী জুলাই থেকে ভ্যাট কার্যকর হলে তখন আরেক দফা দাম বাড়বে বলে জানান তিনি।

রডের পাশাপাশি অ্যাঙ্গেলের দামও বেড়েছে। নয়াবাজারের পাইকারি বিক্রেতা মায়া আয়রন স্টিলের ব্যবসায়ী ও বিএসআরএমের ডিলার মো. এবিএম হারুন-অর-রশিদ বলেন, ৪০ গ্রেডের সাধারণ মানের রডের দাম মূল কোম্পানিই বাড়িয়েছে। বিএসএরআম এখনও দর বাড়ায়নি। আগামীতে বাড়ানোর কথা জানিয়েছে।

বর্তমানে পাইকারি সাধারণ মানের ৪০ গ্রেড রড টনে গড়ে পাঁচ হাজার টাকা বেড়ে ৪৪ হাজার থেকে ৪৫ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর ৬০ গ্রেডের বিএসআরএম ৫১ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অন্যান্য ব্র্যান্ডের রড টনে দুই হাজার টাকা বেড়ে ৫০ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতিটন সাধারণ মানের অ্যাঙ্গেল ৪১ হাজার থেকে বেড়ে ৪৫ হাজার টাকা ও ব্র্যান্ডের অ্যাঙ্গেল ৫০ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
সুত্র: সমকাল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Live Video

সম্পাদকীয়

অনুসন্ধানী

বিনিয়োগকারীর কথা

আর্কাইভস

November ২০২০
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Oct    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০