রোমাঞ্চকর জয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার রেকর্ড

প্রচ্ছদ » খেলা » রোমাঞ্চকর জয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার রেকর্ড

পুঁজিবাজার রিপোর্ট ডেস্ক : একমাত্র টি-টোয়েন্টি পর প্রথম ওয়ানডেতেও দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরেছে নিউজিল্যান্ড। এবি ডি ভিলিয়ার্স ও আন্দিলে ফিকোয়াওর ব্যাটে এক বল বাকি থাকতে কিউইদের ৪ উইকেটে হারিয়ে পাঁচ ম্যাচ সিরিজে এগিয়ে গেছে প্রোটিয়ারা।

এই জয়ে নিজেদের টানা ওয়ানডে জয়ের রেকর্ডও স্পর্শ করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। এটা তাদের টানা ১২তম জয়। এর আগে ২০০৫ সালেও টানা ১২ ম্যাচ জিতেছিল তারা। টানা ১২ জয় আছে পাকিস্তানেরও। তবে বিশ্ব রেকর্ডটা অস্ট্রেলিয়ার। ২০০৩ সালে টানা ২১ ম্যাচ জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া।

রোববার হ্যামিল্টনে বৃষ্টির কারণে ম্যাচের দৈর্ঘ্য নেমে এসেছিল ৩৪ ওভারে। অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের ফিফটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার সামনে ২০৮ রানের লক্ষ্য ছুড়ে দিয়েছিল নিউজিল্যান্ড।

লক্ষ্য তাড়ায় দক্ষিণ আফ্রিকার শুরুটা হয় দারুণ। কুইন্টন ডি ককের সঙ্গে ১৫.২ ওভারে ৮৮ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়েন হাশিম আমলা। আমলা ৩৫ করে ফিরলেও ডি কক তুলে নেন ফিফটি।

কিন্তু দলের ১১৭ রানে ফাফ ডু প্লেসি (১৪) ফেরার পরই হঠাৎ ধস নামে দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসে। ১১৭ থেকে ১২৬, ৯ রানের মধ্যেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসে সফরকারীরা! ট্রেন্ট বোল্টের বলে রস টেলরকে ক্যাচ দেওয়ার আগে ডি ক করেন ৬৯। টিম সাউদির পরপর দুই বলে ফিরে যান জেপি ডুমিনি ও ফারহান বেহারদিয়েন।

দলীয় ১৫৬ বলে ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে ফিরে যান ক্রিস মরিসও। তখন ৪৪ বলে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রয়োজন ৫২ রান, কিন্তু হাতে মাত্র ৪ উইকেট। এরপরই ফিকোয়াওকে নিয়ে শুরু ডি ভিলিয়ার্সের লড়াই।

শেষ ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রয়োজন পড়ে ১২ রান। সাউদির করা প্রথম বলে বাই থেকে আসে ১ রান। পরেরটি ওয়াইড, সঙ্গে ডি ভিলিয়ার্সের সিঙ্গেল। পরের বলে সাউদিকে লং অনের ওপর দিয়ে সীমানার বাইরে আছড়ে ফেলেন ফিকোয়াও। ৪ বলে চাই ৩। তৃতীয় বলটি ডট। পরের বলে লেগ বাই থেকে ১।

তখন ২ বলে দরকার ২। পঞ্চম বলে চার হাঁকিয়ে ১ বল বাকি থাকতে জয় নিশ্চিত করেন ডি ভিলিয়ার্স। ৩৪ বলে ৩ চারে ৩৭ রানে অপরাজিত ছিলেন ডি ভিলিয়ার্স। ২৩ বলে ২টি করে চার-ছক্কায় ২৯ রানে অপরাজিত ছিলেন ফিকোয়াও। তবে ম্যাচসেরা হয়েছেন ডি কক।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে উইলিয়ামসনের ৫৯, ডি গ্র্যান্ডহোমের ৩৪ রানের সুবাদে ৭ উইকেটে ২০৭ রান করেছিল নিউজিল্যান্ড। ৬২ রানে ৪ উইকেট নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার সেরা বোলার মরিস। কাগিসো রাবাদার ঝুলিতে জমা পড়ে ২ উইকেট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Live Video

সম্পাদকীয়

অনুসন্ধানী

বিনিয়োগকারীর কথা

আর্কাইভস

December ২০২০
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Nov    
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১