হুমায়ুন ফরিদীর ৬৫তম জন্মদিন আজ

প্রচ্ছদ » বিনোদন » হুমায়ুন ফরিদীর ৬৫তম জন্মদিন আজ

পুঁজিবাজার রিপোর্ট ডেস্ক : আজ ২৯ মে। হুমায়ুন ফরিদীর ৬৫তম জন্মদিন। আজ ১৯৫২ সালের আজকের দিনে হুমায়ুন ফরীদি ঢাকার নারিন্দায় জন্মগ্রহণ করেন।

তার বাবার নাম এটিএম নূরুল ইসলাম ও মা বেগম ফরিদা ইসলাম। চার ভাই-বোনের মধ্যে তার অবস্থান ছিল দ্বিতীয়। ইউনাইটেড ইসলামিয়া গভর্নমেন্ট হাই স্কুলের ছাত্র ছিলেন তিনি। মাধ্যমিক স্তর উত্তীর্ণের পর চাঁদপুর সরকারি কলেজে পড়াশোনা করেন। এরপর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন।

সংশপ্তক নাটক প্রচারের অনেক আগে থেকেই হুমায়ুন ফরিদী মঞ্চ এবং টিভি নাটকের শীর্ষস্থানীয় অভিনেতা ছিলেন। এই নাটকটিকে তার শ্রেষ্ঠ কাজও বলা যায় না। তবুও বাংলাদেশ টেলিভিশনের সর্বকালের সবচেয়ে জনপ্রিয় চরিত্র হিসেবে বেশিরভাগ মানুষই বোধহয় ‘কান কাটা রমজান’কেই পছন্দ করবেন। ভয়ংকর কুটিল এবং ধুরন্ধর এবং একই সাথে কিছুটা কমেডি ধাচের রমজান চরিত্রটি ফরিদী যেভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন, তার কোন তুলনা হতে পারে না। ব্ল্যাক কমেডির সার্থক চিত্ররুপ বলা যেতে পারে নাটকে তার অংশটুকুকে। নাটকের অন্যসব জাঁদরেল অভিনেতা/অভিনেত্রীদের তার সামনে নিষ্প্রভ মনে হত সবাইকেই।

ছোট পর্দা থেকে শুরু করে বড় পর্দায় তিনি ছিলেন একটি কিংবদন্তি। তার মত একজন শিল্পীর অভাব পূরণ হবার নয়। বাংলাদেশের চলচ্চিত্র যাদের অসাধারণ অভিনয়ের মধ্য দিয়ে কৃতিত্বের সাথে এগিয়ে গিয়েছিল হুমায়ূন ফরীদি তাদের মধ্যে প্রথম শ্রেণীর একজন অভিনেতা।

এরপর তিনি গণমাধ্যমে অনেক নাটকে অভিনয় করেন। ১৯৯০-এর দশকে হুমায়ুন ফরীদি চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশ করেন। সেখানেও তিনি বিপুল জনপ্রিয়তা লাভ করেন। বলা হয়ে থাকে যে, স্যুটিংস্থলে অভিনেতার তুলনায় দর্শকেরা হুমায়ুন ফরীদির দিকেই আকর্ষিত হতো বেশি। বাংলাদেশের নাট্য ও সিনেমা জগতে তিনি অসাধারণ ও অবিসংবাদিত চরিত্রে অভিনয়ের জন্য স্মরণীয় হয়ে আছেন।

ব্যক্তিগত জীবনে হুমায়ুন ফরিদী দুইবার বিয়ে করেন। প্রথম বিয়ে করেন ১৯৮০’র দশকে। ‘দেবযানী’ নামের তার এক মেয়ে রয়েছে এ সংসারে।

পরবর্তীতে বিখ্যাত অভিনেত্রী সুবর্ণা মোস্তফাকে তিনি বিয়ে করে দীর্ঘ সময় সংসার জীবনে আবদ্ধ থেকে তাদের মধ্যেকার বিবাহ-বিচ্ছেদ ঘটে ২০০৮ সালে।

বাংলা নাটক ও চলচিত্রের পর্দা কাপানো শক্তিমান অভিনেতা হুমায়ূন ফরিদী ২০১২ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি কোটি কোটি ভক্তকে চোখের জলে ভাসিয়ে চলে যান না ফেরার দেশে।

২০০৪ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন হুমায়ুন ফরীদি। নাট্যাঙ্গনে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে তাকে সম্মাননা প্রদান করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Live Video

সম্পাদকীয়

অনুসন্ধানী

বিনিয়োগকারীর কথা

আর্কাইভস

April ২০২১
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Mar    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০