১১ মাস অপেক্ষার পর বিদায় বললেন আফ্রিদি

প্রচ্ছদ » খেলা » ১১ মাস অপেক্ষার পর বিদায় বললেন আফ্রিদি
Generated by IJG JPEG Library

পুঁজিবাজার রিপোর্ট ডেস্ক : জাতীয় দলের হয়ে সর্বশেষ ২০১৬ সালের ২৫ মার্চ মাঠে নেমেছিলেন পাকিস্তানের মারকুটে ব্যাটসম্যান শহীদ আফ্রিদি। ভারতের পাঞ্চাব ক্রিকেট এসোসিয়েশন আইএস বিন্দ্রা স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওই দিন টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছিলেন তিনি। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ওই ম্যাচে বল হাতে ৪ ওভারে ২৭ রান দেওয়ার পর ব্যাট হাতে মাত্র ১৪ রান করেছিলেন আফ্রিদি। ওই ম্যাচে ২১ রানে জয় পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া।

এর আগে সর্বশেষ ২০১৫ সালে ১০ মার্চ আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের সর্বশেষ ওডিআই খেলেছিলেন আফ্রিদি। অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেড ওভারে আইসিসি ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপের তৃতীয় কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচ ছিল সেটি। ওই ম্যাচে ব্যাট হাতে ২৩ রান করার পর ৪ ওভার বল করে কোনো উইকেট ছাড়াই ৩০ রান দিয়েছিলেন আফ্রিদি। আর স্বাগতিকদের কাছে পরাজিত হয়েছিল পাকিস্তান।

টি-টোয়েন্টি এবং ওডিআইয়ের মতো টেস্ট ক্রিকেটেও আফ্রিদির শেষ ম্যাচটি ছিল অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। তাও ২০১০ সালের জুলাই মাসে। লন্ডনের লর্ডসে আয়োজিত ওই ম্যাচে ১৫০ রানে পরাজিত হয়েছিল পাকিস্তান। টেস্ট ক্যারিয়ারের সর্বশেষ ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ৩ ওভারে ২৫ রান দেওয়ার পর ব্যাট হাতে ৩১ রান করেছিলেন তৎকালীন অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি। আর দ্বিতীয় ইনিংসে ১৪ ওভারে ৪৪ রানের বিনিময়ে ১ উইকেট নেওয়ার পর ব্যাট হাতে মাত্র ২ রান করেছিলেন তিনি।

টেস্ট, ওডিআই এবং টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট মিলিয়ে গত ১১ মাসে কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেননি শহীদ আফ্রিদি। বার বারই জাতীয় দলের রঙিন পোশাকে ফেরার আভাস দিয়েছিলেন তিনি। তাকে দলের নেওয়ার ব্যাপারে ইতিবাচক সাড়াও দিয়েছিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। তবে দীর্ঘ ১১ মাস পার হলেও আন্তর্জাতিক ম্যাচে আর খেলা হলো না আফ্রিদি। অপেক্ষার পাল্লা আর ভারী না করে অবশেষে অবসর ঘোষণা দিলেন তিনি।

পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) গতকাল রোববার নিজেদের ম্যাচ শেষ হওয়ার পর অবসরের ঘোষণা দেন শহীদ আফ্রিদি। পিএসএলে পেশোয়ার জালমির হয়ে খেলছেন তিনি। গতকাল মাঠে নেমেছিলেন করাচির বিপক্ষে। ওই ম্যাচে দল হারলেও আলো ছড়িয়েছেন আফ্রিদি। ২৮ বল ৩ বাউন্ডারি এবং ৫ ওভার বাউন্ডারির সাহায্যে ৫৪ রানের ইনিংস খেলেন তিনি।

এমন আলো ছড়ানোর ইনিংসের পর আফ্রিদি বলেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে আমার বিদায় বলতে হচ্ছে। এখনও ভক্তদের জন্যই খেলি। এই লিগে আরও দুই বছর খেলার ইচ্ছে আছে। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায়। এতোদিন দেশের জন্য পেশাদারভাবে ও গুরুত্ব দিয়েই খেলেছি।

গত ১১ মাসে বেশ কয়েকবার আফ্রিদিকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে পিসিবি। তবে সে ঘোষণা এখন পর্যন্ত কার্যকর হয়নি। ভবিষ্যতেও আফ্রিদির জন্য ফেয়ারওয়েল ম্যাচ আয়োজনের সুযোগ পাচ্ছে না পাকিস্তান।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৬ সালে ২ অক্টোবর কেনিয়ার বিপক্ষে ওডিআই দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আফ্রিদির পথচলা শুরু হয়। ২০১৫ সালে ১০ মার্চ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সর্বশেষ ওডিআই ম্যাচ খেলেন তিনি। এর মধ্যে ৩৯৮ ম্যাচের ৩৬৯ ইনিংসে ব্যাট হাতে ৮ হাজার ৬৪ রান করেছেন এ মারকুটে ব্যাটসম্যান। ওডিআইতে ৬টি শতক এবং ৩৯টি অর্ধশতক রয়েছে তার ঝুলিতে।

১৯৯৮ সালের ২২ অক্টোবরে করাচির মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট খেলেন আফ্রিদি। ২০১০ সালের জুলাই পর্যন্ত ২৭ টেস্টের ৪৮ ইনিংসে ব্যাট হাতে ১ হাজার ৭১৬ রান এবং ৪৭ ইনিংসের বল হাতে ৪৮ উইকেট নিয়েছেন তিনি। ক্রিকেটের দীর্ঘ ফরম্যাটে ৫টি শতক এবং ৮টি অর্ধশতকের ইনিংসে খেলেছেন আফ্রিদি।

২০০৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেন আফ্রিদি। ২০১৬ সালের মার্চ পর্যন্ত ৯৮ টি-টোয়েন্টি খেলেছেন তিনি। এর মধ্যে ৯০ ম্যাচে ব্যাট হাতে ৪টি অর্ধশতকসহ ১ হাজার ৪০৫ রান করেছেন এ মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান। আর বল হাতে ৯৬ ম্যাচে ৯৭ উইকেট নিয়েছেন আফ্রিদি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Live Video

সম্পাদকীয়

অনুসন্ধানী

বিনিয়োগকারীর কথা

আর্কাইভস

November ২০২০
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Oct    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০