পুঁজিবাজার রিপোর্ট আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, রাশিয়া, স্পেন, ইতালিসহ বিশ্বের কমপক্ষে ৯৯টি দেশে বড় ধরনের সাইবার হামলার ঘটনা ঘটেছে। এসব দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ‘র‍্যানসমওয়্যার’ ছড়িয়ে কম্পিউটারের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে হ্যাকাররা।

আজ শনিবার বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে আরও বলা হয়েছে, গতকাল শুক্রবার গভীর রাত পর্যন্ত ৯৯টি দেশের কম্পিউটার এই হামলা শিকার হয়েছে। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি দেশের স্বাস্থ্য, টেলিকম ও যোগাযোগের মতো গুরুত্বপূর্ণ খাতের কম্পিউটারে হামলা করা হয়েছে। নিয়ন্ত্রণ ফিরিয়ে দিতে ডিজিটাল মুদ্রা ‘বিট কয়েনের’ মাধ্যমে ৩০০ ডলার করে চেয়েছে হ্যাকাররা।

বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের কম্পিউটার বড় ধরনের হামলার শিকার হয়েছে। দেশটির হাসপাতালে জরুরি চিকিৎসা সেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। অন্যদিকে স্পেনের টেলিকম ও জ্বালানি কোম্পানি, যুক্তরাষ্ট্রের ডেলিভারি কোম্পানি ফেডএক্সও এই হামলার শিকার হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘র‍্যানসমওয়্যার’ এমন এক ধরনের ম্যালওয়ার বা ভাইরাস, যা কম্পিউটারের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় এবং ব্যবহারকারীকে প্রবেশে বাধা দেয়। অনেক সময় হার্ডডিস্কের অংশ বা ফাইল পাসওয়ার্ড দিয়ে অবোধ্য করে ফেলে। পরে ওই কম্পিউটারের নিয়ন্ত্রণ ফেরত দেওয়ার জন্য মুক্তিপণ বা অর্থ দাবি করা হয়। ‘ট্রোজান ভাইরাসের’ মতো এ ধরনের ম্যালওয়ার এক কম্পিউটার থেকে অন্য কম্পিউটারে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

সাইবার নিরাপত্তা সংস্থা অ্যাভাস্টের বরাত দিয়ে এতে বলা হয়েছে, ওয়ানাক্রাই এবং ভ্যারিয়্যান্ট নামের র‍্যানসমওয়্যারের শিকার ৭৫ হাজার কম্পিউটার আক্রান্ত হওয়ার তথ্য পাওয়া গেছে।

সংস্থাটির ম্যালওয়্যার বিশেষজ্ঞ জ্যাকব ক্রুসটেক বলেন, এভাবে হ্যাক করাটা সত্যিই দুশ্চিন্তার বিষয়।

ম্যালওয়্যার বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অনেক ক্ষেত্রে মিল দেখা গেলেও নির্দিষ্ট কোনো লক্ষ্যবস্তুতে এই হামলা চালানো হয়নি।

ধারণা করা হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা সংস্থা এনএসএর তৈরি করা একটি টুল ব্যবহার করে এই সাইবার হামলা চালানো হয়েছে। গত এপ্রিল মাসে শ্যাডো ব্রোকারস নামের হ্যাকাররা ওই প্রযুক্তিটি চুরি করে এবং ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়। গত মার্চে এটি ঠেকাতে একটি নিরাপত্তা প্যাচ ছাড়ে মাইক্রোসফট; কিন্তু অনেক কম্পিউটার তাতে আপডেট করা হয়নি।

অন্যদিকে র‍্যানসমওয়্যারে বিট কয়েনের যেসব ওয়ালেটে অর্থ জমা দিতে বলা হয়েছে, সেখানে নতুন করে মোটা অর্থ জমা পড়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Live Video

সম্পাদকীয়

অনুসন্ধানী

বিনিয়োগকারীর কথা

আর্কাইভস

December ২০২০
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Nov    
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১