সরকার নিজের অপকর্মের দায় অন্যের ওপর চাপাচ্ছে: রিজভী

প্রচ্ছদ » রাজনীতি » সরকার নিজের অপকর্মের দায় অন্যের ওপর চাপাচ্ছে: রিজভী

rizviপুঁজিবাজার রিপোর্ট ডেস্ক: বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করে বলেছেন, আওয়ামী ঐতিহ্যে আইনের শাসনের কোনো অস্তিত্ব নেই।

বাস্তবে বেআইনি সরকার অপকর্মের ওপর নির্ভর করে নিজেদের টিকিয়ে রাখতে চেষ্টা করে। আর নিজেদের অপকর্মের দায় অন্যের ওপর চাপায় সরকার।

বুধবার নয়াপল্টনে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব অভিযোগ করেন তিনি।

ব্রিফিংয়ে ফেনীতে খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলার বিষয়ে কথা বলেন রিজভী।

তিনি বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া উখিয়া-টেকনাফে রোহিঙ্গাদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ ও সহমর্মিতা জানাতে গেলে ফেনীতে তার গাড়িবহরে হামলা চালায় আওয়ামী সন্ত্রাসীরা।

অথচ শত শত বিএনপি নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে। আটক করা হয়েছে বেশ কিছু নেতাকর্মীকে। তাদের ওপর বর্বর নির্যাতন চালিয়ে হামলার মিথ্যা নাটকও সাজানো হয়েছিল।

কিন্তু সত্যকে ধামাচাপা দেয়ার অপচেষ্টা কখনই সফল হয় না- শাক দিয়ে মাছ ঢাকা যায় না। ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা সংবাদ সম্মেলন করে হাটে হাঁড়ি ভেঙে দিয়েছেন।

তারা বলেছেন- সম্প্রতি কক্সবাজার যাওয়ার পথে ফেনীতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে যে হামলা হয়, তার নেপথ্যে ছিল- ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সংসদ সদস্য নিজামউদ্দিন হাজারী।

রিজভী এ সময় অভিযোগ করে বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে যে হামলা চালিয়েছে, সেটি আরও ওপর অর্থাৎ সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়েই যে পরিকল্পনা করা হয়েছিল, সে বিষয়ে আর কোনো সন্দেহ নেই। থলের বিড়ালকে বেশি দিন আটকে রাখা যায় না।

বিএনপির এ সিনিয়র নেতা আরও বলেন, সম্প্রতি গণমাধ্যম ও মানুষের বাকস্বাধীনতাকে সম্পূর্ণরূপে হরণ করতে সম্প্রচার আইন করতে যাচ্ছে সরকার। মূলত এই আইনের শিরোনামকে যতই ইতিবাচক হিসেবে তুলে ধরা হোক না কেন- এটি আসলে বিরোধী দল, বহু মত, বিশ্বাস ও স্বাধীন চিন্তার ওপর কুঠারাঘাত করার জন্যই পাস করার তোড়জোড় শুরু করেছে সরকার।

সরকারের বিরুদ্ধে কোনো সমালোচনা বিরোধিতা ও বিরোধী রাজনৈতিক কর্মসূচিকে বেপরোয়াভাবে দমন করার জন্যই এ আইন করা হচ্ছে।

বিএনপির এ নেতা বলেন, এই ভোটারবিহীন সরকারের আমলে তাদের সৃষ্ট নানা গণবিরোধী আইনের মধ্যে এই হবে আরেকটি ভয়াবহতম কালো আইন।

বাংলাদেশের মানুষ এমন কালো আইন মেনে নেবে না। আমি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির পক্ষ থেকে সরকারের এহেন সম্প্রচার আইন-২০১৭ পার্লামেন্টে পাস করার উদ্যোগের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

রিজভী বলেন, খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বর্তমান ভোটারবিহীন বাকশালী স্বৈরশাসকদের হটাতে গোটা জাতি আজ ঐক্যবদ্ধ। যতই ষড়যন্ত্র আওয়ামী লীগ করুক না কেন, তাদের শেষ রক্ষা হবে না। খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে অচিরেই গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, কেন্দ্রীয় নেতা হাবিবুল ইসলাম হাবিব, আজিজুল বারী হেলাল, এমএ মালেক, কাজী আবুল বাশার প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Live Video

সম্পাদকীয়

অনুসন্ধানী

বিনিয়োগকারীর কথা

আর্কাইভস

September ২০২১
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Aug    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০